বিনা জামানতে লোন ও এর নিয়ম

Share Now:

দেশের নিম্ন ও মধ্যবিত্ত তথা সাধারন শ্রেণীর আর্থিক জটিলতা, সংকট ‍ও দুরাবস্থা নির্মূল করে উন্নত জীবন ব্যবস্থা গড়ার লক্ষ্যে ব্যাংক ‍ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদের তাদের চাহিদা অনুযায়ী সহজ শর্তে বিনা জামানতে লোন প্রদান করে থাকছে।

বিনা জামানতে লোন কি?

বিনা জামানতে লোন হল এমন এক ধরনের লোন যা কেবলমাত্র ঋণগ্রহীতার ঋণ নেবার যোগ্যতার দ্বারা প্রদান করা হয় কোন প্রকার জামানত ছাড়া। বিনা জামানতে লোন - কখনও কখনও স্বাক্ষর ঋণ বা ব্যক্তিগত লোন হিসাবে উল্লেখ করা হয়। সম্পত্তি বা অন্যান্য সম্পদ জামানত হিসাবে ব্যবহার না করে এই লোন অনুমোদিত হয়। অনুমোদন এবং প্রাপ্তি সহ এই জাতীয় লোনের শর্তাদি প্রায়ই ঋণগ্রহীতার ঋণ স্কোরের উপর নির্ভরশীল। সাধারণত, ঋণগ্রহীতাদের নির্দিষ্ট অনিরাপদ লোণের জন্য অনুমোদিত হওয়ার জন্য উচ্চ ক্রেডিট স্কোর থাকতে হবে। ক্রেডিট স্কোর হল ঋণগ্রহীতার ঋণ পরিশোধের ক্ষমতার সংখ্যাসূচক প্রতিনিধিত্ব এবং গ্রাহকের লোনের ইতিহাসের ভিত্তিতে গ্রাহকের লোন যোগ্যতা প্রতিফলিত হয়। এক কথায়, বিনা জামানতে লোন হচ্ছে ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে পারবেন তবে গ্রাহকের যে ডকুমেন্ট বা সম্পত্তি রয়েছে সে ডকুমেন্টগুলো ব্যাংক বন্ধক রাখতে পারবে না তবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চাইলে গ্রাহকের ডকুমেন্টস গুলো দেখতে পারবে।

বিনা জামানতে লোন কারা দিচ্ছে?

বর্তমানে বাংলাদেশের সরকারি-বেসরকারি ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিনা জামানতে লোন দিচ্ছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান গুলোর নাম হল-কর্মসংস্থান ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক,জনতা ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, মিচুয়্যাল ট্রাষ্ট ব্যাংক  সহ আরো অনেক প্রতিষ্ঠান।ব্যাংকের পাশাপাশি দেশের আর্থিক প্রতিষ্ঠান যেমন- এনজিও, কো-অপারেটিভ প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদেরকে সহজশর্তে বিনা জামানতে লোন প্রদান করে থাকে।কেন্দীয় ব্যাংক নির্দেশনা দিয়েছেন একজন নারী উদ্যোক্তাকে বিনা জামানতে প্রায় ২৫ লাখ এবং পুরুষ উদ্যোক্তাকে প্রায় ১০ লাখ টাকা ঋণ দেওয়ার । এক্ষেত্রে ঋণের জন্য ব্যাংকের কাছে গ্রহণযোগ্য কোনও ব্যক্তিকে গ্যারান্টার হতে হয়।

বিনা জামানতে লোন কারা নিচ্ছে?

দেশের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, মাঝারি ব্যবসায়ী, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাগণ কিংবা চাকুরিজীবি মূলত সবাই এই লোনের জন্য আবেদন করে থাকেন। এই লোন নেওয়ার জন্য ঋনের জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই তাকে বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে। বিনা জামানতে লোন পাওয়ার জন্য বয়স সীমা হচ্ছে  সর্বনিম্ন ১৮ বছর সর্বোচ্ছ ৫০ বছর পর্যন্ত।

বিনা জামানতে লোন নিতে কি কি Eligibility / উপযোগিতার প্রয়োজন হয়:

বিনা জামানতে লোন নেওয়ার জন্য যে সকল Eligibility / উপযোগিতার প্রয়োজন হয় তা নিম্নে বর্ণিত হল-

  1. বাংলাদেশের একজন সাধারন নাগরিক হতে হবে।
  2. শাখার অধিক্ষেত্রের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। স্থায়ী বাসিন্দা না হলে শাখার অধিক্ষেত্রের একজন স্থায়ী বাসিন্দাকে ঋণের গ্যারান্টার হতে হবে;
  3. বয়স সাধারণত ১৮ হতে ৫০ বছর হতে হবে। কর্মসংস্থান ব্যাংকের পুরাতন ঋণগ্রহীতাদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা শিথিলযোগ্য।
  4. লোনের জন্য দুই বছরের ব্যবসার অভিজ্ঞতা ও বেসিসের সুপারিশপত্রের প্রয়োজন হবে।  
  5. ব্যবসায়ের আয়-ব্যয় বিবরণী হিসাব থাকতে হবে। 
  6. ঋণ ব্যবহারের যোগ্যতাসহ ঋণ পরিশোধের ক্ষমতা ও আর্থিক আচরণে সুনামের অধিকারী হতে হবে।
  7. অন্য কোনো ব্যাংক/আর্থিক প্রতিষ্ঠান/এনজিও অথবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণখেলাপী যোগ্য বিবেচিত হবেন না।
  8. ব্যাংকের নিকট গ্রহনযোগ্য ব্যবসায়ী হতে হবে।

ডকুমেন্ট সমূহ:

বিনা জামানতে লোন নেওয়ার জন্য যে সকল ডকুমেন্টের প্রয়োজন হয় তা নিম্নে বর্ণিত হল-

  1. সরকারি জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি থাকতে হবে।
  2. আবেদনকারী গ্যারেন্টারের সদ্য তোলা ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি।
  3. ইউটিলিটি বিলের ফটোকপি যেমন- গ্যাস বিল, ইলেকট্রিক বিল, ওয়াসা বিল ।
  4. উদ্যোক্তা/গ্যারান্টারের স্থায়ী বাসিন্দার প্রমাণপত্র হিসেবে উদ্যোক্তা/গ্যারান্টারের 
  5. দলিল/পর্চার ফটোকপিসহ স্থানীয় ইউ.পি চেয়ারম্যান/পৌর মেয়র/ সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড 
  6. কাউন্সিলার কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব সার্টিফিকেট থাকতে হবে।
  7. প্রশিক্ষণ/অভিজ্ঞতার সার্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  8. প্রকল্প এলাকায় অবস্থিত ব্যাংকের ঋণ প্রদানকারী শাখায় নির্ধারিত ফরমে ঋণের আবেদন;
  9. ব্যবসায়ীর ক্ষেত্রে আপডেট ট্রেড লাইসেন্স থাকতে হবে।
  10. ব্যবসায়ীর ক্ষেত্রে আপডেট টিন সার্টিফিকেট থাকতে হবে।

উপরোক্ত সকল  তথ্য প্রদান করার পরে ব্যাংক আপনার তথ্যসমূহ যাচাই বাছাই করার জন্য নির্দিষ্ট সংখ্যক কার্যদিবসের সময় নিবে। এর পরে সিদ্ধান্ত নিবে আপনাকে লোন দেয়া সম্ভব কি না। এই ধরনের লোন সম্পর্কিত সকল তথ্যসমূহ পেতে ভিসিট করুন সংযোগইউ প্লাটফর্মে। এই প্লাটফর্মে এসএমই সম্পর্কিত সকল তথ্য পেয়ে যাবেন এবং এর পাশাপাশি আপনার নিকটস্থ আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সকল স্কীম এবং সার্ভিসের ব্যাপারে অবগত হতে পারবেন। তাই আজই ভিসিট করুন আমাদের ওয়েবসাইটে। বিস্তারিতঃ shongjogyou.com

Share Now: